শিরোনাম:
ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮
Songjog24
শনিবার ● ৩ নভেম্বর ২০১৮
প্রচ্ছদ » এনজিও » বরগুনায় নির্বাচনী অলিম্পিয়াড ৫ নভেম্বর
প্রচ্ছদ » এনজিও » বরগুনায় নির্বাচনী অলিম্পিয়াড ৫ নভেম্বর
৫৯৩ বার পঠিত
শনিবার ● ৩ নভেম্বর ২০১৮
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

বরগুনায় নির্বাচনী অলিম্পিয়াড ৫ নভেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক। সংযোগ টোয়েন্টিফোর

---
বরগুনা: “নাগরিক চেতনাবোধে উদ্বুদ্ধ তরুনরাই গণতান্ত্রিক ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার ভবিষ্যত কারিগর”  স্লোগানে আগামী ৫ নভেম্বর মঙ্গলবার বরগুনায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নির্বাচনী অলিম্পিয়াড ২০১৮। মঙ্গলবার সকাল ৯টায় বঙ্গবন্ধু কমপ্লেক্সে এ নির্বাচনী অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন আয়োজক কর্তৃপক্ষ। দি হাঙ্গার প্রজেক্ট - বাংলাদেশের সহযোগীতায় সুজন- সুশাসনের জন্য নাগরিক এ প্রতিযোগীতার আয়োজন করছে।

প্রতিযোগীদের নির্বাচন প্রক্রিয়া, নির্বাচন সংক্রান্ত আইন ও বিধি-বিধান, স্বদেশের তথ্য, ইতিহাস-ঐতিহ্য, দেশের সংবিধান ও সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানসমূহ, আইন-কানুন, বিগত নির্বাচনসমূহের তথ্য ও ফলাফল, নাগরিক অধিকার, নাগরিকদের দায়িত্ব ও কর্তব্য, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক রাজনীতি, আন্তর্জাতিক ঘটনাপ্রবাহ, দেশীয় ঘটনাপ্রবাহ, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহ ও সাধারণ জ্ঞান বিষয়ের উপর ৫০টি প্রশ্নের নৈর্ব্যত্তিক উত্তর দিতে হবে। অংশগ্রহনকারীদের জন্য থাকছে সনদ পত্র, সেরা দশজনের জন্য পুরস্কার, সেরা তিনজন বিজয়ীকে জাতীয় পর্যায়ে নির্বাচনী অলিম্পিয়াডে অংশ গ্রহনের সুযোগ।

সুজন- সুশাসনের জন্য নাগরিক বরগুনা জেলা সমন্বয়ক সুমন সিকদার বলেন, এবছরেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সংবিধান অনুযায়ী সংসদের মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্ববর্তী ৯০ দিনের মধ্যে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সংবিধানের ১২৩ এর ২। (৩)-এর (ক) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী “মেয়াদ অবসানের কারণে সংসদ ভাংগিয়া যাইবার ক্ষেত্রে ভাংগিয়া যাইবার পূর্ববর্তী নব্বই দিনের মধ্যে” নির্বাচন করার বিধান রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এই বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী আগামী ৩১ অক্টোবর ২০১৮ থেকে ২৮ জানুয়ারি ২০১৯-এর মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে হবে। কেননা দশম জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২৯ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে - যে দিন থেকে মেয়াদ গণনা শুরু হয়েছে। তবে সংবিধানের ১২৩ এর ২। (৩)-এর (খ) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী “মেয়াদ অবসান ব্যতীত অন্য কোনো কারণে সংসদ ভাংগিয়া যাইবার ক্ষেত্রে ভাংগিয়া যাইবার পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে” এই নির্বাচনের বিধান রয়েছে। নির্বাচন কমিশন থেকেও এমনটাই বলা হচ্ছে যে, অক্টোবর মাসে তফসিল ঘোষণা এবং ডিসেম্বরেই হতে পারে এই নির্বাচন। তাই নির্বাচনকে সামনে রেখেই আমরা সঠিক জনপ্রতিনিধি বাছাই করার জন্য এই নির্বাচনী অলিম্পিয়াডের আয়োজন করেছি।

এবিষয়ে সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক বরিশাল বিভাগীয় সমন্বয়ক ও সিনিয়ার প্রোগ্রাম অফিসার মেহের আফলোজ মিতা বলেন,  বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক দেশ। মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে অনেক ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের প্রিয় মাতৃভূমির রাষ্ট্র পরিচালনার মূল দলিল সংবিধান অনুযায়ী প্রজাতন্ত্রের সকল ক্ষমতার মালিক জনগণ। কিন্তু মালিকরা সরাসরি দেশ শাসন বা সেবামূলক প্রতিষ্ঠানসমূহ পরিচালনা প্রক্রিয়ায় অংশ নেয় না। তারা শাসন প্রক্রিয়া বা সেবামূলক প্রতিষ্ঠানসমূহ পরিচালনায়  অংশ নেন তাদের নির্বাচিত প্রতিনিধির মাধ্যমে। এই প্রতিনিধিরাই মালিক তথা দেশের জগণনের স্বার্থ সংরক্ষণ করার কথা।

তিনি আরো বলেন, জনপ্রতিনিধি বাছাইয়ের পদ্ধতিই হচ্ছে নির্বাচন। এই বাছাই পদ্ধতি যদি সঠিক হয়, তবে প্রকৃত জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হন। আর বাছাই প্রক্রিয়া যদি সঠিক না হয়, তবে মালিকরা সঠিক প্রতিনিধি পান না। সে ক্ষেত্রে জনগণ তাদের প্রতিনিধির মাধ্যমে দেশ শাসন করছে বা সংশ্লিষ্ট সেবামূলক প্রতিষ্ঠানসমূহ পরিচালনা করছে একথা বলা যায় না। তাই, সঠিক জনপ্রতিনিধি নির্বাচন তথা সুষ্ঠু নির্বাচনের কোনো বিকল্প নেই। তবে, মনে রাখতে হবে যে, নির্বাচনই গণতন্ত্র নয়, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার প্রথম এবং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ধাপ।

এবিষয়ে সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক দিলীপ সরকার বলেন,  আমাদের ঐতিহ্যমন্ডিত ইতিহাস ও জাতিগত প্রতিটি অর্জনের ক্ষেত্রে এদেশের তরুণ সমাজের ভূমিকা ছিল অত্যন্ত গৌরবোজ্জল। কিন্তু সেই অতীত ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে পারছে না বর্তমান ছাত্র সমাজ। নিজেদের সুশিক্ষিত করার পাশাপাশি দেশ ও জাতি গঠনে তারা রাখতে পারছে না কোনো গঠনমূলক ভূমিকা। অথচ দেশ-জাতি অগ্রগতির ক্ষেত্রে তাদের ভূমিকা অপরিহার্য। তারাই জাতির ভবিষ্যত। আগামীদিনে তাদেরকেই ধরতে হবে দেশের হাল। তাই মেধা, মনন ও মানসিক প্রস্তুতিতে আগামী দিনের যোগ্য নাগরিক হিসেবে তরুণদের গড়ে তোলার কোনো বিকল্প নেই।
তিনি আরো বলেন, মানসম্মত শিক্ষার পাশাপাশি সচেতনতা বৃদ্ধির মধ্য দিয়েই তরুণদের মধ্যে গণতান্ত্রিক চেতনাবোধ সৃষ্টিসহ আগামী দিনের যোগ্য নাগরিক হিসেবে তাদের গড়ে তোলা সম্ভব। আর এই তরুণদের সচেতনতা বৃদ্ধি প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবেই আয়োজন করা হচ্ছে নির্বাচনী অলি¤িপয়াড। শুধুমাত্র সচেতনতা বৃদ্ধিই নয়, জীবনে প্রথমবারের মত ভোটাধিকার প্রয়োগের ক্ষেত্রে প্রার্থীদের স¤পর্কে ভালোভাবে জেনে-শুনে-বুঝে সৎ, যোগ্য ও জনকল্যাণে নিবেদিত প্রার্থীদের ভোটদানের জন্য তরুণদের উদ্বুদ্ধ করাও নির্বাচনী অলি¤িপয়াডের অন্যতম উদ্দেশ্য। পাশাপাশি নাগরিক হিসেবে স্ব স্ব অধিকার ও কর্তব্যবোধ স¤পর্কে সচেতন হওয়া এবং অধিকার আদায়ে প্রয়োজনে সংগঠিত ও সোচ্চার হতেও উৎসাহ যোগাবে এই নির্বাচনী অলি¤িপয়াড। উৎসাহ যোগাবে দেশের গণতন্ত্র, উন্নয়ন ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করার।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)