শিরোনাম:
ঢাকা, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮
Songjog24
শুক্রবার ● ১৭ জুলাই ২০২০
প্রচ্ছদ » জাতীয় » সকালের ক্লান্তি দূর করতে যা করবেন
প্রচ্ছদ » জাতীয় » সকালের ক্লান্তি দূর করতে যা করবেন
১৭১ বার পঠিত
শুক্রবার ● ১৭ জুলাই ২০২০
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

সকালের ক্লান্তি দূর করতে যা করবেন

লাইফস্টাইল ডেস্ক, সংযোগ টোয়েন্টিফোর

---

সকালে ঘুম থেকে উঠে ক্লান্তি কাটতে চায় না অনেকেরই। রাতে ভালো ঘুম হওয়ার পরও এটি ঘটতে পারে। বিছানা ছেড়ে ওঠার মতো শক্তিও চলে যায় যেন। এই ক্লান্ত ও অলস সকাল সারাদিনের উপর প্রভাব ফেলতে পারে। কোনো কাজেই মনোযোগ দেয়া সম্ভব হয় না তখন। সকালের এই ক্লান্তি কাটানোর কয়েকটি উপায় প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া-

স্নুজ বাটনে চাপ নয়
রাতে ভালো ঘুম হওয়ার পরও অ্যালার্ম বাজলে স্নুজ বাটনে টাচ করে অনেকেই আরও কিছুটা সময় ঘুমিয়ে নেন। আপনি হয়তো বাড়তি আধঘণ্টা ঘুমিয়ে নিলেন। তবে সেই ঘুম আপনাকে পরিপূর্ণ অনুভূতি দেবে না। বরং সারাদিন ধরে আপনার কাজ করার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করবে। স্নুজ বাটনে চাপ দেওয়ার পরে বাড়তি ঘুম সাধারণত শান্তির হয় না। আপনি ঘুম থেকে ওঠার সঠিক সময়টি মেনে চলার চেষ্টা করুন।

প্রথমেই একগ্লাস পানি
ডিহাইড্রেশনের কারণে দেখা দিতে পারে নিদ্রাহীনতা, অলসতা এবং রুক্ষ মেজাজ। তাই ঘুম থেকে ওঠার পরপরই একগ্লাস পানি পান করে নিন নিজেকে হাইড্রেট করার জন্য। এটি আরও হাইড্রেটিং করতে এতে লেবুর রস মিশিয়ে পান করতে পারেন।

হালকা ব্যায়াম
আমরা সবাই জানি যে কিছুটা হালকা ব্যায়াম দিয়ে সকাল শুরু করা ভাল। এছাড়াও রাতে ঘুমানোর পারে আমাদের পেশীগুলো আক্ষরিক অর্থে পঙ্গু হয়ে পড়ে। আপনি যখন হাত-পা প্রসারিত করে হালকা ব্যায়াম করেন, তখন এটি আমাদের পেশীগুলোকে পুনরায় সক্রিয় করে এবং শরীরে শক্তি উত্তেজক এন্ডোরফিন প্রকাশ করে।

মুখে পানি ছিটিয়ে দিন
বিছানা থেকে ওঠা যদি আপনার প্রধান সমস্যা হয় তবে স্প্রে বোতল দিয়ে কিছুটা পানি ছিটিয়ে দেয়ার চেষ্টা করুন। শরীরকে দ্রুত সতেজ করার জন্য এটি একটি ভালো উপায়।

ঠিক সময়ে নাস্তা করুন
সকালে ঠিক সময়ে পেট ভরে খাওয়া দিন শুরু করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। সকালের খাবার এড়িয়ে যাওয়া বা ঘুম থেকে ওঠার পর অনেকটা দেরি করে খাওয়া শরীরে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। আমরা যখন ঘুমাই তখন অন্তত ছয়-আট ঘণ্টা পেট খালি থাকে। সুতরাং সকালে ওঠার পরপরই প্রয়োজন পরে জ্বালানীর।

দুপুরের খাবার পর্যন্ত চিনি না খাওয়ার চেষ্টা করুন
সকালের খাবারের আইটেমগুলো রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়িয়ে তুলতে পারে। এটি শরীরের পক্ষে মোটেই ভালো নয়। সুতরাং, আপনার মিষ্টি জাতীয় খাবারগুলো সকালে নয়, বরং বিকেলের জন্য রেখে দিন।

খুব বেশি কফি খাবেন না
সকালের অলসতা কাটাতে অনেকেই কফি পান করে থাকেন। তবে অতিরিক্ত কফি আমাদের অস্থিরতা বাড়িয়ে তুলতে পারে এবং বারবার প্রস্রাবের চাপও আসতে পারে। কফি একেবারেই বাদ দিতে হবে, এমন নয়। তবে কমিয়ে পান করবেন। এটি মেনে চলার জন্য ছোট কফির মগ বেছে নিতে পারেন।

কিছুক্ষণ রোদে থাকুন
সূর্যের আলো আমাদের শরীরের সেরোটোনিন স্তর বাড়ায় এবং ঘুমকে উন্নত করে। এটি আমাদের সারাদিনের শক্তি বাড়িয়ে তুলতে সহায়তা করে। রচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণা অনুসারে, কিছুক্ষণ রোদে থাকলে তা আমাদেরকে আরও প্রাণবন্ত করতে সাহায্য করে। বাইরে গিয়ে রোদ পোহানোর সুযোগ না থাকলে জানালার পর্দা সরিয়েই নাহয় কিছুক্ষণ রোদে বসুন।

একটু চমক আনুন

একটু মনে করার চেষ্টা করুন, যেদিন পিকনিক থাকতো বা বিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থাকতো, সেদিন খুব সহজেই ঘুম থেকে জেগে উঠতেন! কখনো কখনো আমাদের শক্তি বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজন কিছুটা উত্তেজনা। সকালের অবসন্নতা কাটাতে পরেরদিনের জন্য এমনকিছু পরিকল্পনা করে রাখুন যা আপনার করতে বেশি ভালোলাগে। পছন্দের কোনো খাবার রান্নার পরিকল্পনাও করতে পারেন।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)