শিরোনাম:
ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮
Songjog24
সোমবার ● ১১ মার্চ ২০১৯
প্রচ্ছদ » চায়ের কাপে ভোটের কথা » খানসামায় জমে উঠেছে ভগ্নিপতি-শ্যালকের ভোটযুদ্ধ
প্রচ্ছদ » চায়ের কাপে ভোটের কথা » খানসামায় জমে উঠেছে ভগ্নিপতি-শ্যালকের ভোটযুদ্ধ
৪৩৬ বার পঠিত
সোমবার ● ১১ মার্চ ২০১৯
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

খানসামায় জমে উঠেছে ভগ্নিপতি-শ্যালকের ভোটযুদ্ধ

মো. রফিকুল ইসলাম, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর):

---আসন্ন পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় ভোটযুদ্ধে চেয়ারম্যান পদে নেমেছেন ভগ্নিপতি-শ্যালক। এ লড়াইয়ে টিকে থাকতে একে অপরে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছেন তারা। দ্বিতীয় ধাপে আগামী ১৮ মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হবে।

উপজেলা চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন শ্যালক মো. সহিদুজ্জামান শাহ্। তিনি উপজেলা বিএনপির সভাপতি থেকে দু’বার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এরপর তিনি আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন লাভে ব্যর্থ হয়ে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। একই পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তাঁর আপন ভগ্নিপতি মো. আবু হাতেম মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্রার্থীরা তাদের প্রতীক নিয়ে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। কেউই মাঠ ছাড়তে রাজি নন। দিন যতই ঘনিয়ে আসছে, ভগ্নিপতি-শ্যালকের দৌড়ঝাঁপ ততই তুঙ্গে উঠছে। বিদ্যমান পরিস্থিতিতে ভোটের মাঠে তাদের জনপ্রিয়তা দারুণ লক্ষ্য করা গেছে। তবে ভগ্নিপতি- শ্যালকের ভোট ভাগাভাগিতে সুযোগ নিতে চান অপর প্রার্থীরা। উপজেলা চেয়ারম্যান পদে অন্যান্যর মধ্যে অধ্যাপক সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন (নৌকা) এবং জাতীয়পার্টির মনোনীত উপজেলা জাতীয়পার্টির আহ্বায়ক মোনাজাত চৌধুরী মিলন (লাঙ্গল) প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে রয়েছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে বর্তমান উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এটিএম সুজাউদ্দীন (লুহিন) শাহ্-উড়োজাহাজ, রেজাউল করিম-টিয়াপাখি, সাংবাদিক ধীমান দাস-তালা, সাংবাদিক মো. সিকান্দার আলী কাবুল-চশমা, মামুন সরকার-টিউবওয়েল, হাজ্জাজ আল হাদী-বৈদ্যুতিক বাল্ব প্রতীক নিয়ে প্রতিপক্ষ প্রার্থীদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া মহিলা (সংরক্ষিত) ভাইস চেয়ারম্যান পদে আফরোজা পারভিন-কলস, পলি রানী রায়-ফুটবল, সাবেক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মহসিনা বেগম-প্রজাপতি প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিস জানায়, উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে ১ লাখ ২৫ হাজার ৫৪২ জন ভোটার রয়েছেন। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম বলেন, ভোটগ্রহণ অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। ছবি আছে।



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)