শিরোনাম:
ঢাকা, শনিবার, ৮ মে ২০২১, ২৪ বৈশাখ ১৪২৮
Songjog24
মঙ্গলবার ● ৬ এপ্রিল ২০২১
প্রচ্ছদ » আইন-আদালত » অভিশপ্ত যৌতুক কেড়ে নিল নববধূ শিল্পীর সিঁদুর!
প্রচ্ছদ » আইন-আদালত » অভিশপ্ত যৌতুক কেড়ে নিল নববধূ শিল্পীর সিঁদুর!
৪৫ বার পঠিত
মঙ্গলবার ● ৬ এপ্রিল ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

অভিশপ্ত যৌতুক কেড়ে নিল নববধূ শিল্পীর সিঁদুর!

নরসিংদী সংবাদদাতা :

---
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার প্রদীপ চন্দ্র দাসের মেয়ে শিল্পী রানী দাস (১৯)। গত ২১ ফেব্রুয়ারি নরসিংদীর পলাশ উপজেলার জিনারদী ইউনিয়নের জিনারদী গ্রামের বিমল দাসের ছেলে শ্যামল দাসের সঙ্গে পারিবারিকভাবে তার বিয়ে হয়। বিয়ের দেড় মাসের মাথায় যৌতুকের নগদ টাকা এবং স্বর্ণালঙ্কারের জন্য তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল সোমবার রাতে শ্বশুরবাড়ি পলাশের জিনারদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় স্বামী শ্যামল ও শ্বশুর বিমল দাসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নিহতের পরিবারের লোকজন জানান, চলতি বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত বিয়েতে ছেলের পরিবারকে এক লাখ ১০ হাজার টাকা ও এক ভরি স্বর্ণালঙ্কার দেওয়ার শর্তে বিয়ে হয় শ্যামল দাস ও শিল্পী রানী দাসের। কিন্তু শিল্পীর পরিবার বিয়ের আগের দিন ছেলেপক্ষকে এক লাখ টাকা ও আধাভরি স্বর্ণালঙ্কার দিতে সক্ষম হলেও বাকি আধাভরি স্বর্ণ ও ১০ হাজার টাকা দিতে ব্যর্থ হয়। ফলে বিয়ের সাপ্তাহখানেক পর থেকেই নববধূ শিল্পী রানীর ওপর অমানবিক নির্যাতন শুরু করে শ্বশুরবাড়ির লোকজন। পরিবারটি যৌতুকের বাকি টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার পরিশোধের জন্য ছয় মাসের সময় চায়।

শ্বশুরবাড়ির লোকজন যৌতুকের বাকি টাকা না পেয়ে গতকাল সোমবার শিল্পীকে শ্বাসরোধে হত্যা করে বলে অভিযোগ নিহতের পরিবারের। খবর পেয়ে পুলিশ স্বামী শ্যামল চন্দ্র দাসের বাড়ি থেকে শিল্পী রানী দাসের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

শিল্পী রানীর বড় ভাই শুভ চন্দ্র দাস বলেন, মনে হয় আমার বোনের হাত থেকে বিয়ের মেহেদির রং এখনো মুছে যায়নি। এরই মধ্যে যৌতুকের বাকি টাকা ও স্বর্ণের জন্য তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন নির্যাতন শুরু করে। বোন প্রায়ই ফোন করে কান্নাকাটি করত আর নির্যাতনের কথা বলত। তাই আমরা ছয় মাস সময় চেয়েছিলাম। তারা সেটা না দিয়ে আমার বোনকে মেরেই ফেলল। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

---

পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দীন জানান, নিহত শিল্পী রানীর শরীরে বিভিন্ন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সোমবার রাতে নিহত শিল্পীর ভাই শুভ চন্দ্র দাস বাদী হয়ে স্বামী শ্যামল ও শ্বশুর বিমলকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে মঙ্গলবার সকালে অভিযুক্ত শ্যামল ও বিমলকে গ্রেপ্তার করে। পরে অভিযুক্তদের আদালতে পাঠানো হয়।

তিনি বলেন, আমরা তদন্ত করছি। তবে নিহতের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে হত্যার রহস্য জানা যাবে।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)